বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৩২ পূর্বাহ্ন

প্রবাসীদের পছন্দের তালিকায় আরব বিশ্বে দ্বিতীয় ওমান

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত: বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩০১
বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ দেশের তালিকায় ওমান 
ফাইল ছবিঃ

সাশ্রয়ী মূল্যের বিনোদন, প্রাকৃতিক সুন্দর এবং নিরাপত্তা সহ বেশকিছু কারণে প্রবাসীদের পছন্দের তালিকায় আরব বিশ্বে ২য় অবস্থানে উঠে এসেছে ওমানের মাস্কাট। চলতি বছর বিদেশ যাত্রার তালিকায় প্রবাসীদের আরব বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় এবং বিশ্বে চৌদ্দতম স্থান অর্জন করেছে এই শহর।

গতকাল (১-ডিসেম্বর) এমন তথ্য জানিয়েছে ওমান নিউজ এজেন্সি। এতে উল্লেখ করা হয়, “জার্মান নেটওয়ার্ক ইন্টারন্যাশনাল তাদের প্রকাশিত এই বছরের প্রবাসীদের বিদেশ যাত্রার সেরা শহরগুলির সূচকে আরব বিশ্বের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে ওমানের মাস্কাট সহরের নাম।”

 

বিবৃতি আরো বলা হয়, “জার্মান নেটওয়ার্কের তথ্য মতে প্রবাসীরা বিশেষত সাশ্রয়ী মূল্যের বিনোদনের বিকল্প ও দুর্দান্ত আবহাওয়ার পাশাপাশি সাশ্রয়ী এবং স্বাস্থ্যসেবার মান নিয়ে ব্যাপক প্রশংসা করেছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে যে, ‘‘বিদেশীরা নিরাপদে এবং অন্যান্য নৈতিক দিক বিবেচনায় মাস্কাটকে বেশি পছন্দ করেছে।”

No description available.

ওমানে করেনায় আক্রান্তের বেশিভাগের বয়স ১৫-৬০ বছর 

ওমানে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের বেশিরভাগের বয়স ১৫ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে বলে জানিয়েছে ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগী, আইসিইউতে ভর্তি রোগী ও করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের ওপর চালানো সমীক্ষা অনুযায়ী দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু করে জুলাই পর্যন্ত পরিচালিত এই সমীক্ষায় অংশ নিয়েছিলো ৬৮ হাজার ৯৬৭ জন। যাদের মধ্যে ৭৪ শতাংশ করোনা আক্রান্ত রোগীর বয়স ১৫ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে অবস্থিত। 

আরো পড়ুনঃ ভ্যাকসিন নিয়ে সুখবর দিলো ওমান

 

লিঙ্গ, বয়স, জাতীয়তা এবং অবস্থানের পাশাপাশি জ্বর, কাশি ও গলা ব্যথার লক্ষণগুলি নিয়েও গবেষণা চালানো হয়েছে। গবেষণায় ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হাঁপানি, স্নায়ুতন্ত্রের রোগ, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ, ইমিউনোসপ্রেসিভ ড্রাগ ব্যবহারকারী রোগী, দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ, দীর্ঘস্থায়ী রক্তকণিকার রোগ এবং দীর্ঘস্থায়ী লিভারের রোগ অন্তর্ভুক্ত ছিলো।

আরো পড়ুনঃ ওমানের একটি কূপে ৩ বাংলাদেশীর মর্মান্তিক মৃত

দেশটিতে করোনায় প্রথম আক্রান্ত হয় ২২ শে ফেব্রুয়ারি। বিশ্বব্যাপী মহামারীর বিস্তারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই রোগের বিস্তার, রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি নিয়েও গবেষণা করা হয়েছে। এইসব গবেষণার মূল উদ্দেশ্য হলো করোনা সংক্রামিত রোগীদের বিশেষত প্রবীণরা হাসপাতালে প্রবেশের আগে এবং তাদের অবস্থা নির্ধারণ করা।

এই উপায়ে, করোনা রোগীদের মহামারী সংক্রান্ত নজরদারি আরো সহজতর হয়। রোগ নজরদারি ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃক পরিচালিত এই গবেষণার ফলাফলগুলি দেশের স্বাস্থ্য খাতকে বর্তমান অবস্থা থেকে আরো এগিয়ে যাবে মনে করছেন দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক।

আরো দেখুনঃ

 

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT