শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৩৪ অপরাহ্ন

ওমানে আইন অমান্য করলে প্রায় ৮ লাখ টাকা জরিমানা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২০
ওমানে আইন অমান্য করলে প্রায় ৮ লাখ টাকা জরিমানা

ওমানে লকডাউনের আইন অমান্য করলে সাড়ে তিন হাজার রিয়াল জরিমানা 

ওমানে লকডাউনের আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে সাড়ে তিন হাজার ওমানি রিয়াল পর্যন্ত জরিমানা এবং দীর্ঘমেয়াদী জেলের আইন রয়েছে। সম্প্রতি ওমানের একটি জাতীয় গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই কথা বলেন দেশটির রয়্যাল ওমান পুলিশের কর্মকর্তা মেজর মুধর আল মাজরুই। তিনি বলেন, “ওমানে মাস্ক না পরার জরিমানা ১০০ ওমানি রিয়াল থেকে শুরু করে সুপ্রিম কমিটির আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে সাড়ে তিন হাজার ওমানি রিয়াল পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। একই সাথে জরিমানার পাশাপাশি যারা মাস্ক ব্যবহার করবে না তাদের জেলও হতে পারে।”

Omar Faruk Restaurant

ইতিমধ্যেই গত শুক্রবার ওমানের আল বুরাইমি ও দক্ষিণ শারকিয়ায় বিচারিক আদালত ৯ জনকে করোনা মোকাবেলায় সুপ্রিম কমিটির বিধিমালা ভঙ্গ করার দায়ে এক হাজার রিয়াল জরিমানা ও ছয় মাসের জেল দিয়েছেন। সেইসাথে অভিযুক্ত প্রবাসীদের ওমান ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য আদেশ দিয়েছেন আদালত। সুপ্রিম কমিটির নিয়ম মেনে তাদের নাম ও ছবি স্থানীয় মিডিয়া প্রকাশনাগুলিতে প্রকাশিত হয়। 

আরো পড়ুনঃ রহস্যময় ওমানের সুলতান 

আল মাজরুই আক্ষেপ করে বলেন, ওমানে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে আরওপি ও সুপ্রিম কমিটি অনেক চেষ্টা করেছে। কিন্তু সাধারণ জনগণ সঠিকভাবে নিয়ম মেনে চলেনি। তিনি বলেন, “আমরা যদি সুপ্রিম কমিটির নিয়ম মেনে চলতাম, তাহলে বর্তমানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে আমরা যে পরিসংখ্যান দেখেছি সে অনুযায়ী সংক্রমণের সংখ্যা আরো কমে আসত। পাশাপাশি চিকিৎসা খাতে যারা কাজ করছেন তাদের পরিশ্রম অনেকটা কমে আসতো। 

লকডাউনের নিয়ম অনুসারে, জরুরি সেবা ও পণ্যবাহী পরিবহন রাত ৮ টা থেকে সকাল ৫ টার ভিতরেও চলাচল করতে পারে। এছাড়াও যাদের বিমানে ভ্রমণ করতে হবে বা যাত্রী গ্রহণ করতে হবে তাদের এই লকডাউনের মাঝেও চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা। 

এদিকে ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা ডাঃ সোফিয়া আল মুগেরি বলেন, করোনায় রোগীদের একটি বৃহৎ অংশ আমরা সফলভাবে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পেরেছি। আমি আশা করি ওমানে সকল করোনা রোগী সঠিক পরিচর্যা পাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন, “হাসপাতালে করোনা রোগীর সংখ্যা সত্যিই ওভারলোড হয়ে গিয়েছিল। বিশেষত আমাদের আইসিইউর ওপর খুব চাপ পরেছে। আমরা সকলেই জানতাম যে মহামারীর কারণে আমাদের সিভিআইডি-তে নিশ্চিত হওয়া রোগীর পাশাপাশি মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। একজন চিকিৎসক হিসাবে আমি মনে করি নতুন করে লকডাউন দেওয়া খুবই সময় উপযোগী একটি কাজ।

 

প্রবাস টাইম বুলেটিন দেখুন

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT
error: Content is protected !!