শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

এমপি পাপুলের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেলো সিআইডি

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৬ জুন, ২০২০
এমপি পাপুলের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেলো সিআইডি

অর্থ এবং মানব পাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার এমপি পাপুলের বিরুদ্ধে মানব ও অর্থপাচার, অবৈধ সম্পদ অর্জনসহ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছে বাংলাদেশের সিআইডি ও দুদক। এছাড়াও সিআইডির হাতে বিভিন্ন সময় গ্রেফতার হওয়া মানবপাচারকারীদের কাছ থেকেও নেওয়া হচ্ছে তথ্য। প্রমাণ মিললে তার বিরুদ্ধে মানবপাচার ও অর্থপাচার আইনে মামলা করা হবে বলেও জানিয়েছে সিআইডি।

এদিকে পাপুলের ঘটনা তদন্তে নেমেছে দুদক। ইতিমধ্যে এমপি পাপুল, তার স্ত্রী সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলাম, মেয়ে ওয়াফা ইসলাম ও শ্যালিকা জেসমিনের ব্যক্তিগত বিভিন্ন নথিপত্র তলব করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী। শহীদ ইসলাম পাপুল মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত বলে এর আগে দেশ বিদেশের কয়েকটি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছিলো।

গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর গত ৬ জুন কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য কাজী শহীদ ইসলাম পাপুলকে। গ্রেফতারের পর আট দিনের রিমান্ডে বেরিয়ে আসে নানা তথ্য। ইতিমধ্যে পাপুলের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিয়েছেন ৭ প্রবাসী বাংলাদেশি। সেখানেও উঠে আসে নানা তথ্য। তবে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশকে কুয়েত সরকার কোন কিছু না জানালেও বাংলাদেশের বিভিন্ন সংস্থা পাপুল এবং তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছে। পেয়েছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যও।

কুয়েতের সিআইডি এবং স্থানীয়ভাবে তথ্য সংগ্রহ করে মানবপাচারের ব্যাপারে এমপি পাপুলের বিরুদ্ধে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছে বাংলাদেশের সিআইডি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় গ্রেফতার হওয়া মানব পাচারকারীদের কাছ থেকেও নেওয়া হচ্ছে তথ্য। সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, যেকোনো আদালতে অভিযোগ প্রমাণ হলে বাতিল হবে তার সংসদ সদস্য পদ।

আরও পড়ুনঃ এমপি পাপুলের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে কুয়েত, ফেঁসে যেতে পারেন আরও অনেকেই

আটক শহিদ ইসলামের বিরুদ্ধে মানব পাচারের অভিযোগ তদন্তের পর মুদ্রা পাচারের অভিযোগের তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে দেশটির সিআইডি। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশের এই সাংসদকে সঙ্গে নিয়ে অভিযানে নামেন সিআইডির কর্মকর্তারা। অভিযানে জব্দ করা হয় সাংসদের চেকবই। তাতে বিপুল পরিমাণ আর্থিক লেনদেনের প্রমাণ মিলেছে।

কুয়েতের কূটনীতিক ও ব্যবসায়িক সূত্রগুলো জানিয়েছে, কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কর্মকর্তারা গত বুধবার মুর্তজা মামুন নামে কাজী শহিদের এক বিশ্বস্ত কর্মচারীকে আটক করেন। এরপর সাংসদের ব্যাংক হিসাব থেকে লেনদেনের বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছেন।

 

আরও দেখুনঃ ওমানের প্রবাসী ব্যবসায়ীরা যেমন আছেন?

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design by : NooR IT
www.ashrafalisohan.com
error: Content is protected !!