সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:২৫ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর ঘোষণার পরও পদক্ষেপ নেই ওমান দূতাবাসের

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০
মন্ত্রীর ঘোষণার পরও পদক্ষেপ নেই ওমান দূতাবাসের

করোনার এই মহামারীর সময়ে প্রবাস থেকে স্বেচ্ছায় দেশে ফিরতে চাওয়া প্রবাসীদের নিবন্ধন বা তালিকা করতে দূতাবাসগুলোকে নির্দেশ দেওয়ার পরেও বাংলাদেশ দূতাবাস ওমান প্রবাসীদের দেশে পাঠাতে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। এতে করে দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসীদের মাঝে চরম ক্ষোভ দেখা দিচ্ছে। ইতিমধ্যে মঙ্গলবার দূতাবাসের সামনে সামনে বিক্ষোভও করেছে অনেক প্রবাসী কর্মী।

৩১ মে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দূতাবাসের শ্রম উইংকে নির্দেশনা দেন। তিনি বলেছিলেন, “যে সকল প্রবাসী স্বেচ্ছায় নিজেদের খরচে বা কোম্পানির খরচে দেশে ফিরতে চান, তাদেরকে দূতাবাসে গিয়ে নিবন্ধিত হতে হবে।” এ বিষয়ে দূতাবাসগুলোকে নির্দেশনা দিবেন কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, “নির্দেশনা এখনই দিয়ে দিলাম এবং আজই পাঠিয়ে (নির্দেশনার চিঠি ) দেয়া হবে।” এই খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার হয়। এতে করে দীর্ঘ দিন অপেক্ষায় থাকা প্রবাসীদের মাঝে আশা জাগে দেশে ফেরার।

এরপর ৩ জুন কাতার, ইরাক ও মালদ্বীপে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে অনলাইনে নিবন্ধনের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। ৭ জুন বাহরাইন দূতাবাস থেকেও বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। এজন্য অনলাইন লিংকও দেয়া হয় বিজ্ঞপ্তিতে। কিন্তু অন্য অনেক দূতাবাস ‌এ বিষয়ে কোন ঘোষণা বা বিজ্ঞপ্তি এখনো দেয়নি।

মঙ্গলবার( ( ৯ জুন ) ওমানে বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে কয়েকশ’ প্রবাসী দেশে ফেরার নিবন্ধনের জন্য জড়ো হন। তারা দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করলে, বলা হয় মন্ত্রীর এমন কোন নির্দেশনা তারা পাননি। প্রবাসীরা জানান, “মন্ত্রীর এই ঘোষণার খবরকে সঠিক নয় বলেছে দূতাবাসের কর্মকর্তারা। কিন্তু আমরা তো মন্ত্রীর বক্তব্য শুনেছি ও দেখেছি। তাহলে কোনটা মিথ্যা আর কোনটা সত্য?” এ নিয়ে দূতাবাসের সামনে বেশ কথা কাটাকাটি হয় শ্রমিকদের সাথে।

দূতাবাসের এইসব আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেশটিতে দীর্ঘদিন বসবাসরত বাংলাদেশী কমিউনিটি নেতারাও। বুধবার ওমানের শীর্ষ বাংলা নিউজ পোর্টাল “প্রবাস টাইম” এর লাইভে এসে কমিউনিটি নেতা জবলুল আনোয়ার বাদল এবং ইঞ্জিনিয়ার মোস্তফা কামাল ও দূতাবাসের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ দেন। দূতাবাস থেকে প্রবাসীরা যথাযথ সেবা পাচ্ছেনা এমন অভিযোগ ও দেন এই কমিউনিটি নেতারা।

এদিকে সৌদি আরব থেকে জরুরি দেশে ফিরতে চাওয়া প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করছে দূতাবাস ও বিমান। এবিষয়ে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে আলাপ আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছেন দেশটিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ। ভাড়া নির্ধারণ না হওয়ায় এখনো ফ্লাইটের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়নি। শিগগিরই ভাড়া ঠিক হলে এ বিষয়ে ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানান রাষ্ট্রদূত।

আরও পড়ুনঃ ওমানে একদিনে সুস্থতার সর্বোচ্চ রেকর্ড

ইতিমধ্যেই কাতার থেকে ৪১৪ বাংলাদেশি নাগরিক নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (ডি৭৭৭-৩০০বোয়িং) এর একটি বিশেষ ফ্লাইট বুধবার দেশে ফিরেছে। বুধবার সন্ধ্যায় দোহার হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ ফ্লাইটটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে মধ্যরাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

আরও দেখুনঃ ওমানের মরুভূমিতে বাংলাদেশীর কৃষি বিপ্লব

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design by : NooR IT
www.ashrafalisohan.com
error: Content is protected !!