বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন

লক্ষাধিক প্রবাসীকে ফেরত পাঠাবে কুয়েত

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
  • ১৯১
লক্ষাধিক প্রবাসীকে ফেরত পাঠাবে কুয়েত

লক্ষাধিক প্রবাসীকে ফেরত পাঠাবে বর্তমান দুনিয়ার মুদ্রামানের শীর্ষ দেশ কুয়েত। ১৭ হাজার ৮১৮ বর্গ কিলোমিটারের এই দেশটির নিজস্ব জনসংখ্যা মাত্র ১৪ লাখ। তবে প্রবাসী মিলিয়ে এখানে ৪৮ লাখ মানুষের বসবাস। সংখ্যার বিচারে দেখা যাচ্ছে, কুয়েতে দেশটির প্রকৃত নাগরিকদের চেয়ে প্রবাসীর সংখ্যা বেশি। কুয়েতি নাগরিকরা সেখানে সংখ্যালঘু। বিষয়টি সম্প্রতি ভাবনায় ফেলেছে কুয়েতের নীতি নির্ধারকদের।

কুয়েত মূলত তেল নির্ভর অর্থনীতির দেশ। করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে। ফলে অর্থের যোগানও কমেছে কুয়েতের। তাই ভবিষ্যৎ নিয়ে আগাম ভাবতে হচ্ছে। কুয়েত কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা প্রবাসীর সংখ্যা ভবিষ্যতে ব্যাপকভাবে কমিয়ে আনবে। যা দেশটির নাগরিকদের সংখ্যার এক তৃতীয়াংশের বেশি হবে না। অর্থাৎ বর্তমান হিসাবে সেখানে মাত্র পাঁচ লাখ প্রবাসী থাকার সুযোগ পাবে। দেশটিতে বর্তমানে যে ৩৪ লাখ প্রবাসী রয়েছে তার প্রায় অন্তত ৮০ ভাগ ফেরত পাঠানো হবে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ বৃহস্পতিবার (৪ জুন) কুয়েতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কুয়েত নিউজ এজেন্সি (কুনা) এর বরাত দিয়ে জানিয়েছে, কুয়েত প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের জনসংখ্যার প্রায় ৭০ শতাংশই অভিবাসী। এই ভারসাম্যহীনতা ভবিষ্যতে আমাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠবে। এর নিরসন প্রয়োজন।’

দেশটির বিশিষ্ট কলামিস্ট সাজেদ আল আবদালি বলেন, ‘কুয়েতে অভিবাসী শ্রমিকের প্রায় ৫০ শতাংশই গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে। এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে মুহূর্তের মধ্যেই পরিবর্তন আনা প্রায় অসম্ভব।’ সৌদি আরব ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আরব নিউজের তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে প্রায় সাড়ে তিন লাখ বাংলাদেশি কুয়েতে অভিবাসী শ্রমিক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। কুয়েত সরকার শ্রমিকদের দেশে ফেরানো শুরু করলে বাংলাদেশি শ্রমিকদের ওপর কী ধরণের প্রভাব পড়বে তা এখনো নিশ্চিত নয়।

আরও পড়ুনঃ মাস্কাটে ৭০ শতাংশ করোনা রোগী প্রবাসী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তবে ব্লুমবার্গের খবরে বলা হয়েছে, প্রথমে অদক্ষ শ্রমিকদের ফেরানো শুরু হবে। অপরদিকে সরকারি চাকরিতে যারা কর্মরত রয়েছেন তারা সুবিধা পেতে পারেন। তবে হঠাৎ করেই এই বিপুল সংখ্যার প্রবাসীকে ফেরত পাঠানো হবে না এবং কোনো প্রবাসীর প্রতি অমানবিকও হবে না দেশটি। ধীরে ধীরে প্রবাসীর সংখ্যা কমানো হবে বলে পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ আল খালিদ আল সাবাহ।

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT
error: Content is protected !!