শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০১:১০ পূর্বাহ্ন

মাস্কাটে ৭০ শতাংশ করোনা রোগী প্রবাসী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
মাস্কাটে ৭০ শতাংশ করোনা রোগী প্রবাসী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
ছবিঃ প্রতীকী

ওমানের মাস্কাটে মহামারী করোনায় আক্রান্তের ৭০ শতাংশ করোনা রোগী প্রবাসী। বৃহস্পতিবার এই তথ্য গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন করোনাভাইরাস মোকাবেলায় দেশটির সুপ্রিম কমিটি। এতে আরও বলা হয়, ওমানে এখন পর্যন্ত ১৮৬ জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই সময় গণমাধ্যমকে দেওয়া বেশ কিছু তথ্য জানিয়েছে সুপ্রিম কমিটি।
১. দেশটিতে নতুন করে ৭৭৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।
২. আক্রান্তদের মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ৫৮ জন।
৩. এক দিনে দেশটিতে ৬০৬ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। এখন পর্যন্ত দেশটিতে সুস্থ হয়েছে তিন হাজার ৪৫১ জন।
৪. রমজান মাসের শেষার্ধে ও ঈদের ছুটিতে সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি ও নির্দেশনা অমান্য করেছে সাধারণ নাগরিকরা। যে কারণে বর্তমানে আক্রান্তের পরিমাণ বাড়ছে।
৫. আগামী শনিবার থেকে মাতরাহ’র বেশিরভাগ অঞ্চল খোলা হবে।

৬. ড. সাইফ আল আব্রি জানিয়েছেন, হামরিয়া ও মাতরাহ’র কিছু এলাকায় এখনো করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। যে কারণে সেই এলাকাগুলো আগামী দুই সপ্তাহ পর্যবেক্ষণ করা হবে।
৭. সকাল ৭ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত সকল এলাকার বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি রয়েছে।
৮. দেশটির আরও কিছু বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও শিল্প কেন্দ্র খোলার তৃতীয় ধাপ খুব শিগগিরই ঘোষণা করা হবে।
৯. নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটের ৩০ শতাংশ রোগী কিডনিজনিত রোগে আক্রান্ত।
১০. স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পৃথিবীর বেশ কয়েকটি দেশ আক্রান্তের ৮-১০ দিনের মধ্যে সুস্থতা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়া শুরু করেছে। কিন্তু আমাদের দেশে সুস্থ রোগীর পাওয়া গেছে আক্রান্তের ১৪ দিনের মাথায়। তাই আগামীতে দেশটিতে আরও বেশি সুস্থ রোগীর সংখ্যা পাওয়া যাবে বলে জানান তিনি।

১১. স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত রোগীদের যাদের হাইড্রোক্লোরোকুইন দেওয়া হয়েছে তাদের নিয়ে কোনও নেতিবাচক খবর পাওয়া যায়নি।
১২. ডা. ফেরিয়াল জানান, আক্রান্তদের মধ্যে ৩২৫ জন রোগীকে হাইড্রোক্লোরোকুইন চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
১৩. ডা. সাইফ আল আব্রি বলেন, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে হাসপাতালে করোনা রোগীর সংখ্যা কমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তবে নিবিড় পরিচর্যায় অসহায় রোগীর সংখ্যা বাড়ার আশংকা রয়েছে, কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এখনও অনেকেই ঘরে বসে আছে।

আরও পড়ুনঃ ওমানে হামরিয়ার লকডাউন ও খুলে দেওয়া হবে

১৪. ডা. সাইফ আল আব্রি বলেন জুন মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তবে এই মাসে সুস্থতার হারও বেশি।
১৫. দেশটিতে ১৮৬ জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।
১৬. স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন মাস্কাটে ৭০ শতাংশ করোনা রোগী প্রবাসী। সুত্রঃ ওমান অবজারভার

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design by : NooR IT
www.ashrafalisohan.com
error: Content is protected !!