রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

প্রোবায়োটিক কি?

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
প্রোবায়োটিক কি?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, প্রোবায়োটিক হলো এমন কিছু জীবন্ত অণুজীব যা পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রয়োগের ফলে পোষক দেহের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। অর্থাৎ, প্রোবায়োটিক হলো উপকারী অণুজীব বা ব্যাকটেরিয়া, যারা ক্ষতিকর বা রোগ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে। জীব ও পরিবেশকে সুস্থ রাখে। প্রোবায়োটিক সাধারণত ফুড সাপ্লিমেন্ট হিসেবে ক্যাপসুল আকারে গ্রহণ করা যায়।

প্রোবায়োটিক কি কি উপকার করে বা এর কাজ কি? (সকল বয়সের জন্য)

প্রোবায়োটিক জীবদেহে ও পরিবেশে উপস্থিত থেকে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আর এজন্যই মাছ ও চিংড়ি চাষে প্রোবায়োটিকের পরিমিত ব্যবহার প্রয়োজন। যেমন –

০ চাষকৃত প্রজাতির অন্ত্রে উপকারী অণুজীবের বংশবিস্তার করে।

০ ক্ষতিকর ও জীবাণু টিকে থাকলেও সংক্রমণ প্রতিরোধ করে।

০ ক্ষতিকর জীবাণুরোধী বস্তু (ব্যাক্টেরিওসিন ও জৈব এসিড) নিঃসৃত করে ও বিপাকীয় উৎসেচক (digestive enzymes) উৎপন্ন করে।

০ পরিপাক ক্রিয়া বা হজম সহায়তা করে।

০ বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান ও ভিটামিন উৎপাদনে সহায়তা করে।

০ খাবারে রুচি বৃদ্ধি করে

০ ক্ষুধামন্দা দূর করে।

০ প্রদাহ বা ব্যথাজনিত প্রতিক্রিয়া হ্রাস করে।

০ Biomass বা মলের পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

০ ভিটামিন বি ও ভিটামিন কে এর সংশ্লেষণ বৃদ্ধি করে।

০ সিরাম কোলেস্টেরল হ্রাস করে।

০ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

০ ক্ষতিকর জীবাণুর অতিরিক্ত বংশবৃদ্ধি প্রতিরোধে জৈবিক নিয়ন্ত্রক এজেন্ট হিসেবে কাজ করে।

০ পোষকদেহের পীড়নজনিত ক্ষতিকর অবস্থান পরিবর্তন ঘটিয়ে সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে।

০ পরিবেশের মাটি ও পানির উন্নয়ন ঘটায়।

০ কতিপয় ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান নিষ্ক্রিয় করে ইত্যাদি।

প্রোবায়োটিক ফুড কি?

প্রোবায়োটিক ফুড বা খাবার এর অর্থ হলো যেসব খাবার জীবন্ত ব্যাকটেরিয়া বহন করে। এই খাবার এর গুরুত্ব অপরিসীম।

* প্রোবায়োটিক ফুড এর প্রয়োজনীয়তা কি?

প্রোবায়োটিক ফুড এর অনেক প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। বিভিন্ন খাবারে এই প্রোবায়োটিক পাওয়া যায়। নিচে প্রোবায়োটিকের প্রয়োজনীয়তাগুলো তুলে ধরা হলোঃ

১. প্রোবায়োটিকের কারণে জিংক,আয়রন, ফসফরাস, কপার,ম্যাগনেসিয়াম এর পরিমাণ বাড়ে।

২. যাদের আইবিএস এর সমস্যা (পেটের রোগ) রয়েছে তাদের জন্য প্রোবায়োটিক খাবার খুবই কার্যকরী।

৩. যেসব ব্যক্তির ল্যাকটোজ ইন্টলারেন্স এর সমস্যা বা দুগ্ধ জাতীয় খাবার হজমে সমস্যা হয় তাদের জন্য প্রোবায়োটিক খাবার খুবই কার্যকরী।

৪. শিশুদের জন্য প্রোবায়োটিক খাবার খুবই ভালো। কারণ শিশুদের ব্যাক্টেরিয়াজনিত যেসব অসুস্থতা যেমন: ডায়রিয়া বা রাশ উঠা, ঠান্ডা লাগা এসব কিছু প্রোবায়োটিক খাবার দ্বারা সুরক্ষিত হয়।

৫. যাদের অ্যালার্জি বা এজমা রয়েছে তাদের জন্যেও প্রোবায়োটিক খাবার অনন্য ঔষধ হিসেবে কাজ করে।

সুতরাং তাই বলা হয় যে, প্রোবায়োটিকযুক্ত খাবার খাওয়া অত্যন্ত জরুরি। কারণ প্রোবায়োটিকের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম।

৫ টি গুরুত্বপূর্ণ প্রোবায়োটিক খাবার –

১. টক দই –
প্রোবায়োটিকের অন্যতম উৎস হচ্ছে টক দই। এতে আছে ল্যাকটোব্যাসিলাস ও বিফিডোব্যাক্টেরিয়া। এগুলো অন্ত্রের জন্য খুবই ভালো। এজন্য একজন পূর্ণ বয়স্ক মানুষের প্রতিদিন এক কাপ টক দই খাওয়া উচিত।

২. আচার –
আচারে প্রচুর প্রোবায়োটিক আছে। এটি হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

৩. সয়া দুধ বা বেভারেজ –
সয়াবিন থেকে তৈরি খাবারগুলোতে ল্যাকটোজ থাকে। এইগুলো ভালো প্রোবায়োটিক হিসেবে কাজ করে।

৪. পনির –
পনির খুব ভালো একটি প্রোবায়োটিক। এছাড়া পনির এ আছে ভিটামিন এ, বি-১২, ফসফরাস,ক্যালসিয়াম, রিবোফ্লাভিন ইত্যাদি। প্রতিদিন সামান্য পনির খাওয়া উচিত।

৫. ডার্ক চকলেট
ডার্ক চকলেট একটি ভালো মানের প্রোবায়োটিক। এছাড়াও এতে আছে অ্যান্টিওক্সিডেন্ট। এছাড়াও আরও বিভিন্ন খাবারে প্রোবায়োটিক রয়েছে। তাই আমাদের প্রচুর পরিমাণে প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করা জরুরি।

* প্রোবায়োটিক ব্যবহারে কিছু টিপস –

১. কোনো কারণে এন্টিবায়োটিক এর কোর্স করতে হলে ডাক্তারের কাছ থেকে জেনে নিন কি প্রোবায়োটিক খেতে হবে।

২. আজকাল বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত প্রোবায়োটিক টেবলেট, ক্যাপসুল,পাউডার, দই বা দুধ পাওয়া যায়। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এগুলো সেবন করুন।

আরও পড়ুনঃ লিভার ভালো রাখতে ৫ খাবার

৩. অতিরিক্ত যেকোনো কিছুই খারাপ। অতিরিক্ত প্রোবায়োটিক খেলে গ্যাস, পেট খারাপ, হজমে গোলমাল, কোষ্ঠকাঠিন্য ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে।

৪. একেক মানুষের একেক খাবারে এল্যার্জি থাকে। সুতরাং যদি এই প্রোবায়োটিকগুলো এর কোনটিতে এল্যার্জি থাকে তবে তা গ্রহণে বিরত থাকুন।

লেখকঃ উম্মে হাফসা ইভা,
খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design by : NooR IT
www.ashrafalisohan.com
error: Content is protected !!