রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৭:৫৪ অপরাহ্ন

‘ওমানে পর্যায়ক্রমে আকাশপথ খুলে দেওয়া হবে’

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৪২
ওমানে করোনা চিকিৎসায় জরুরী হাসপাতাল নির্মাণের ঘোষণা
স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড.আহমেদ বিন মোহাম্মাদ আল সাঈদি

মহামারী করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ওমান সরকার প্রথম থেকেই সর্তক অবস্থায় রয়েছে। ওমানের করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আজ দেশটির উচ্চ পর্যায় কমিটি সংবাদ সম্মেলন করছে। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় দেশটিতে নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৬৫ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। যার মধ্যে ১৬ জন আইসিইউতে ভর্তি। এ সময় দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “পর্যায়ক্রমে আমরা আকাশপথ খুলে দিবো”

সম্মেলনে ওমান রেডিও ও টিভির পাবলিক অথরিটির চেয়ারম্যান ডা. আব্দুল্লাহ আল হারাসি বনে, বাণিজ্যিক কার্যক্রম খোলার অর্থ এই নয় যে দেশটিতে করোনার সঙ্কট শেষ হয়েছে। আমাদের উচিত হবে করোনার সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। না হলে দেশটির সংক্রামণের হার অনেক বেড়ে যাবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, “দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪০ হাজার নাগরিকের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে দেশটিতে ভাইরাস কখন শীর্ষে পৌঁছাবে তা বলা মুশকিল। তাই আমাদের সবসময় সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে। একই সাথে সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।”

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয় দেশটির প্রায় ৬০ (ষাটজন) স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। যাদের মধ্যে প্রায় ৭০ শতাংশ অন্য কোনো ব্যক্তির থেকে সংক্রমিত হয়েছে। আর ৩০ শতাংশ হয়েছে করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে গিয়ে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওমানে একটা প্রতিষ্ঠান থেকেই ১০৪ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছে। তিনি বলেন, ওমানে মোট আক্রান্তের ৬২ শতাংশ প্রবাসী এবং ৩৮ শতাংশ ওমানি নাগরিক। তিনি আরও বলেন, ওমানে সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত মাস্কাটের মাতরাহ অঞ্চলের এবং এদের মধ্যে অধিকাংশই দর্জি/ ট্রেইলারিং পেশায় কর্মরত।

মন্ত্রী বলেন, “আমরা এখনও পুনরুদ্ধারের পর্যায়ে পৌঁছেনি। এমতাবস্থায় বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের মালিকগন যেন তাদের দায়ত্বশিলতার পরিচয় দেন। তিনি বলেন, মাস্কাটে ৩৯৮জন ওমানি বাদে বাকি সবাই প্রবাসী নাগরিক এবং মাস্কাটের বাহিরে ওমানি নাগরিক বেশী আক্রান্ত হচ্ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মাস্কাটের পরেই সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত হচ্ছে দক্ষিণ বাতিনাহ অঞ্চলে। এদিকে উত্তর বাতিনা অঞ্চলে মাত্র একজন ব্যক্তি থেকেই এই করোনা ছড়িয়েছে। সুতরাং সবার উচিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। ঈদের আগে মহামারী বন্ধ হবে এমনটা আশা করা যায়না। তাই সবাইকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দিক নির্দেশনা যথাযথভাবে মেনে চলতে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।

 

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT
error: Content is protected !!