মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন

অবৈধ কুয়েত প্রবাসীদের দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২০
অবৈধ কুয়েত প্রবাসীদের দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু-Probash Time
সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার পর দূতাবাসে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভিড়

করোনা সংকটে চাকরি হারানো প্রবাসী ছাড়াও অবৈধভাবে বসবাসকারী বিপুল সংখ্যক কর্মীর দেশে ফেরার আশঙ্কা করছে সরকার। ইতিমধ্যেই কুয়েতে সরকারের দেওয়া সাধারণ ক্ষমার আওতাধীন অবৈধ প্রবাসীরা দেশে ফিরছেন। আসন্ন মে মাসের প্রথম সপ্তাহে তাদের দেশে পাঠানো হতে পারে।

গত ১ এপ্রিল বাংলাদেশিসহ অন্যান্য দেশের অবৈধ প্রবাসীদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে কুয়েত সরকার। এর আওতায় বিশেষ সাধারণ ক্ষমাপ্রাপ্ত বিভিন্ন অপরাধে জেলে থাকা প্রবাসী ও চলতি সাধারণ ক্ষমায় নিবন্ধনকৃত প্রবাসীদের ধাপে ধাপে দেশে ফেরত পাঠানো প্রক্রিয়া শুরু করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম। তিনি বলেন, ‘মে মাসের প্রথম সপ্তাহে সাধারণ ক্ষমা পাওয়া অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চালু হতে পারে। তাদের জন্য বিশেষ ফ্লাইটে চালু হতে পারে।’

আরও পড়ুনঃ ‘ওমান থেকে ফিরবে আরও ১৫০০ প্রবাসী’

রাষ্ট্রদূত আবুল কালাম আরও বলেন, ‘নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অবৈধ বাংলাদেশিদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। কয়েকটি ধাপে তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে।’ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, কুয়েত সরকারের নির্ধারিত কর্মসূচি হিসেবে গত রোববার হতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সকল দেশের নাগরিক, যারা এখনো আবেদন করতে পারেননি, তাদের সুযোগ বৃদ্ধি পেল।

কুয়েতে এখন পর্যন্ত সাধারণ ক্ষমায় প্রায় ৫ হাজার প্রবাসী দেশে ফিরতে নাম নিবন্ধন করেছেন। এ ছাড়া দেশটির মাহবুল্লাহ, গ্রিন কসুর, ফিন্তাস ও ছেবদি এলাকার ৪টি ক্যাম্পে যারা আছেন, তারা কুয়েত সরকারের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। তাদের থাকা-খাওয়াসহ বিমান টিকিটের ব্যয় কুয়েত সরকারই বহন করার কথা থাকলেও ক্যাম্পগুলোতে অবস্থান করা বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঠিক মতো খাবার দেওয়া হচ্ছেনা এমন অভিযোগ উঠেছে। ইতিপূর্বে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে এমন কিছু ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাদের অভিযোগ, রোজার আগে তাদের মাত্র দুবেলা খাবার দেওয়া হতো। রোজা শুরু হলে তাদের সাহরী ও ইফতারের পর্যাপ্ত খাবার দেওয়া হয় না।

প্রবাসীদের এমন অভিযোগের ব্যাপারে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালামকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পে থাকা প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনেছি। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে তাদের সমস্যার কথা জানানো হয়েছে।’

বিশ্বের প্রায় ১৭০ দেশে কর্মরত প্রায় সোয়া কোটি বাংলাদেশি। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অভিবাসীদের অধিকাংশই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। ফলে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী দেশে ফিরতে বাধ্য হবেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অধিকাংশই কর্মহীন হয়ে পড়বে। বিষয়ে কূটনৈতিক তৎপরতার পাশাপাশি নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। সংকটকালে প্রবাসীদের ফেরত পাঠানো আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী জানিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কর্মীদের ফেরত পাঠাতে চাইলে নিয়োগকর্তা ও সে দেশের সরকারের কাছ থেকে আর্থিক প্রণোদনাসহ সুযোগ সুবিধা আদায়ের ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে।

 

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design by : NooR IT
www.ashrafalisohan.com
error: Content is protected !!