বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০১:২৪ পূর্বাহ্ন

ওমানের পর কুয়েত থেকে দেশে ফিরলেন ১২৬ প্রবাসী

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২০
  • ১১৯
এবার স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বিমানকে জরিমানা
ফাইল ছবিঃ

মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বিশেষ ফ্লাইটে করে কুয়েত থেকে দেশে ফিরেছেন ১২৬ বাংলাদেশি। সোমবার কুয়েতের স্থানীয় সময় সকাল ৯টার জাজিরা এয়ারওয়েজের একটি বিশেষ ফ্লাইটে তাঁরা ঢাকায় এসে পৌঁছান সন্ধ্যা ছয়টায়। এ ছাড়া সোমবার দিবাগত রাতে আরও ১৮৯ বাংলাদেশির দেশে ফেরার কথা রয়েছে। হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদ উল আহসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদের মধ্যে ১২৫ জন পুরুষ এবং একজন নারী। তারা সেখানে জেল থেকে বিশেষ ক্ষমায় ছাড়া পেয়ে দেশে ফিরেছেন। কুয়েত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে যেসব বিদেশি শ্রমিক কুয়েতে সরকারের আইন ভঙ্গ করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা হিসেবে সব অবৈধ প্রবাসীদের বহিষ্কার করা হচ্ছে। তাদের দেশে অবৈধ বাংলাদেশি ও ভারতীয় নাগরিকদের বহিষ্কার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ১২৬ বাংলাদেশিকে জেল থেকে মুক্তি দিয়ে ডিটেনশন সেন্টারে রাখা হয়। সেখান থেকে পর্যায়ক্রমে আরো বাংলাদেশি শ্রমিককে ফেরত পাঠানো হবে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুনঃ ওমান থেকে দেশে ফিরলেন ২৮৮ প্রবাসী

কুয়েত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ ও নিরাপত্তা বিভাগের জারি করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে বহিষ্কৃত অবৈধ প্রবাসীদের কোনো প্রকার জরিমানা ছাড়াই দেশে ফেরত পাঠানো হবে। জানতে চাইলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, কুয়েতের জেল থেকে মুক্তি পেয়ে দেশে ফেরা ১২৬ জনের কোভিড-১৯ নেগেটিভ সনদ থাকায় আমরা তাদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠিয়েছি। বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য পরীক্ষায় তাদের কারোর মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো লক্ষণ পাওয়া যায়নি। আমরা তাদের হোম কোয়ারেন্টিনের নিয়মকানুন বুঝিয়ে দিয়েছি।

এর আগে গত শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমান থেকে দেশে ফিরেন ২৮৮ প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিক। শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তারা। পরে বিমানবন্দরে তাদের মেডিকেল চেকআপ হয়।

উল্লেখ্য: বৃহস্পতিবার ( ২৩ এপ্রিল ) প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে আন্ত:মন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাংলাদেশি কর্মীদের ফেরত আনার বিষয়ে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশ চাপ দিয়ে আসছিল। বিশেষ করে কুয়েত, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ কয়েকটি দেশ বেশি চাপ দিচ্ছিল। কুয়েত প্রথম থেকেই হুমকি দিয়ে আসছিল, অনিয়মিত কর্মী ফেরত না আনলে বাংলাদেশকে কালোতালিকাভুক্ত করবে। এমন পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণায়ের প্রতিনিধি নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সেই চাপ কিছুটা কমলেও ধাপে ধাপে কর্মী ফেরত আনা হবে বলে জানান তিনি।

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT